শ্রীমদ্ভগবদ্‌গীতা: প্রথম অধ্যায় – অর্জুনবিষাদযোগ(স্বামী জগদীশ্বরানন্দ)


শ্রীমদ্ভগবদ্‌গীতা: প্রথম অধ্যায় – অর্জুনবিষাদযোগ

(স্বামী জগদীশ্বরানন্দ) 
ধৃতরাষ্ট্র উবাচ –
ধর্মক্ষেত্রে কুরুক্ষেত্রে সমবেতা যুযুৎসবঃ ।
মামকাঃ পাণ্ডবাশ্চৈব কিমকুর্বত সঞ্জয় ।। ১
ধৃতরাষ্ট্র জিজ্ঞাসা করিলেন
“হে সঞ্জয়, পুণ্যভূমি কুরুক্ষেত্রে দুর্যোধনাদি আমার পুত্রগণ এবং যুধিষ্ঠিরাদি পাণ্ডবগণ যুদ্ধার্থে সমবেত হইয়া কি করিল ?” ১
সঞ্জয় উবাচ –
দৃষ্ট্বা তু পাণ্ডবানীকং ব্যূঢ়ং দুর্য্যোধনস্তদা ।
আচার্য্যমুপসঙ্গম্য রাজা বচনমব্রবীৎ ।। ২
জন্মান্ধ কুরুরাজ ধৃতরাষ্ট্রের অমাত্য সঞ্জয় কহিলেন
তখন রাজা দুর্যোধন পাণ্ডবসৈন্যসমূহকে ব্যূহাকারে অবস্থিত দেখিয়া আচার্য দ্রোণের নিকট গমনপূর্বক এই কথা বলিলেন । ২
পশ্যৈতাং পাণ্ডুপুত্রাণামাচার্য্য মহতীং চমূম্ ।
ব্যূঢ়াং দ্রুপদপুত্রেণ তব শিষ্যেণ ধীমতা ।। ৩
হে আচার্য, আপনার বুদ্ধিমান শিষ্য দ্রুপদপুত্র ধৃষ্টদ্যুম্ন এই ব্যূহ রচনা করিয়াছেন । আপনি পাণ্ডবগণের এই বিপুল সৈন্যসমাবেশ দর্শন করুন । ৩
অত্র শূরা মহেষ্বাসা ভীমার্জুনসমা যুধি ।
যুযুধানো বিরাটশ্চ দ্রুপদশ্চ মহারথঃ ।। ৪
ধৃষ্টকেতুশ্চেকিতানঃ কাশীরাজশ্চ বীর্য্যবান্ ।
পুরুজিৎ কুন্তিভোজশ্চ শৈব্যশ্চ নরপুঙ্গবঃ ।। ৫
যুধামন্যুশ্চ বিক্রান্ত উত্তমৌজাশ্চ বীর্য্যবান্ ।
সৌভদ্রো দ্রৌপদেয়াশ্চ সর্ব এব মহারথাঃ ।। ৬
এই পাণ্ডবসেনার মধ্যে যুদ্ধে ভীম ও অর্জুনের সমকক্ষ সাত্যকি, মৎস্যরাজ বিরাট, মহাযোদ্ধা দ্রুপদ, শিশুপালের পুত্র ধৃষ্টকেতু, যদুবংশীয় বীর চেকিতান, মহাবীর কাশীরাজ, পুরুজিৎ, রাজা কুন্তিভোজ, নরশ্রেষ্ঠ শৈব্য, পাঞ্চালদেশীয় রাজা পরাক্রমশালী যুধামন্যু ও মহাশক্তিমান্‌উত্তমৌজা, সুভদ্রার পুত্র অভিমন্যু, দ্রৌপদীর (প্রতিবিন্ধ্যাদি) পঞ্চপুত্র এবং অন্যান্য মহাধনুর্ধর বীরপুরুষগণ আছেন । ইহারা সকলেই মহারথ । ৪-৬
অস্মাকন্তু বিশিষ্টা যে তান্নিবোধ দ্বিজোত্তম ।
নায়কা মম সৈন্যস্য সংজ্ঞার্থং তান্ ব্রবীমি তে ।। ৭
হে বিপ্রবর, আমাদের পক্ষে যে সকল বিশিষ্ট যোদ্ধা ও সেনাপতি আছেন তাঁহাদিগকে অবগত হউন । আপনার অবগতির জন্য তাঁহাদের নাম বলিতেছি । ৭
ভবান্ ভীষ্মশ্চ কর্ণশ্চ কৃপশ্চ সমিতিঞ্জয়ঃ ।
অশ্বত্থামা বিকর্ণশ্চ সৌমদত্তির্জয়দ্রথঃ ।। ৮
আমাদের পক্ষে আপনি (দ্রোণাচার্য), ভীষ্ম, কর্ণ, সমরজিৎ কৃপ, অশ্বত্থামা, আমার কনিষ্ঠ ভ্রাতা বিকর্ণ, সোমদত্তপুত্র ভূরিশ্রবা ও সিন্ধুরাজ জয়দ্রথ আছেন । ৮
অন্যে চ বহবঃ শূরা মদর্থে ত্যক্তজীবিতাঃ ।
নানাশস্ত্রপ্রহরণাঃ সর্বে যুদ্ধবিশারদাঃ ।। ৯
আমার জন্য প্রাণ দান করিতে কৃতসঙ্কল্প অন্যান্য অনেক বীর আছেন। ইঁহারা সকলেই শস্ত্রনিক্ষেপে সুদক্ষ ও যুদ্ধনিপুণ । ৯
 অপর্য্যাপ্তং তদস্মাকং বলং ভীষ্মাভিরক্ষিতম্ ।
পর্য্যাপ্তং ত্বিদমেতেষাং বলং ভীমাভিরক্ষিতম্ ।। ১০
হে আচার্য, পিতামহ ভীষ্ম কর্তৃক সুরক্ষিত আমাদের সৈন্যবল অপরিমিত; কিন্তু ভীম কর্তৃক পরিচালিত পাণ্ডবসৈন্য পরিমিত । ১০
অয়নেষু চ সর্বেষু যথাভাগমবস্থিতাঃ ।
ভীষ্মমেবাভিরক্ষন্তু ভবন্তঃ সর্ব এব হি ।। ১১
এক্ষণে আপনারা সকলেই সৈন্যব্যূহসমূহের প্রবেশদ্বারে স্ব স্ব স্থানে অবস্থিত হইয়া পিতামহ ভীষ্মকেই সর্বপ্রকারে রক্ষা করুন । ১১
তস্য সংজনয়ন্ হর্ষং কুরুবৃদ্ধঃ পিতামহঃ ।
সিংহনাদং বিনদ্যোচ্চৈঃ শঙ্খং দধ্মৌ প্রতাপবান্ ।। ১২
কুরুকুলের প্রতাপশালী প্রবৃদ্ধ পিতামহ ভীষ্ম উচ্চ সিংহনাদপূর্বক শঙ্খধ্বনি করিতে লাগিলেন এবং তৎসঙ্গে দুর্যোধনের হৃদয় হর্ষপূর্ণ হইয়া উঠিল । ১২
 ততঃ শঙ্খাশ্চ ভের্যশ্চ পণবানকগোমুখাঃ ।
সহসৈবাভ্যহন্যন্ত স শব্দস্তুমুলোহভবৎ ।। ১৩
অনন্তর অসংখ্য শঙ্খ, ভেরী, ঢাক, মৃদঙ্গ ও রণশিঙ্গা বাজিয়া উঠিল । সেই রণবাদ্য ভয়াবহ হইল । ১৩
 ততঃ শ্বেতৈর্হয়ৈর্যুক্তে মহতি স্যন্দনে স্থিতৌ ।
মাধবঃ পাণ্ডবশ্চৈব দিব্যৌ শঙ্খৌ প্রদধ্মতুঃ ।। ১৪
তাহার পর বহু শ্বেতাশ্বযুক্ত এক মহারথে অবস্থিত মাধব (শ্রীকৃষ্ণ) এবং অর্জুনও দিব্য শঙ্খদ্বয় বাজাইলেন । ১৪
পাঞ্চজন্যং হৃষীকেশো দেবদত্তং ধনঞ্জয়ঃ ।
পৌণ্ড্রং দধ্মৌ মহাশঙ্খং ভীমকর্মা বৃকোদরঃ ।। ১৫
হৃষীকেশ (শ্রীকৃষ্ণ) পাঞ্চজন্য নামক শঙ্খ, ধনঞ্জয় (অর্জুন) দেবদত্ত নামক শঙ্খ এবং ঘোরকর্মা ভীম পৌণ্ড্র নামক মহাশঙ্খ বাজাইলেন । ১৫
অনন্তবিজয়ং রাজা কুন্তীপুত্রো যুধিষ্ঠিরঃ ।
নকুলঃ সহদেবশ্চ সুঘোষমণিপুষ্পকৌ ।। ১৬
কুন্তীপুত্র রাজা যুধিষ্ঠির অনন্তবিজয় নামক শঙ্খ এবং নকুল ও সহদেব যথাক্রমে সুঘোষ ও মণিপুষ্পক নামক শঙ্খদ্বয় বাজাইলেন । ১৬
কাশ্যশ্চ পরমেষ্বাসঃ শিখণ্ডী চ মহারথঃ ।
ধৃষ্টদ্যুম্নো বিরাটশ্চ সাত্যকিশ্চাপরাজিতঃ ।। ১৭
দ্রুপদো দ্রৌপদেয়াশ্চ সর্বশঃ পৃথিবীপতে ।
সৌভদ্রশ্চ মহাবাহুঃ শঙ্খান্ দধ্মু পৃথক্ পৃথক্ ।। ১৮
হে পৃথ্বীপতি ধৃতরাষ্ট্র, মহাধনুর্ধর কাশীরাজ, মহারথ শিখণ্ডী ও ধৃষ্টদ্যুম্ন, রাজা বিরাট, অপরাজিত সাত্যকি, রাজা দ্রুপদ, দ্রৌপদীর পঞ্চপুত্র এবং মহাবীর অভিমন্যু স্ব স্ব শঙ্খ পৃথক্‌ভাবে বাজাইলেন । ১৭-১৮
স ঘোষো ধার্তরাষ্ট্রাণাং হৃদয়ানি ব্যদারয়ৎ ।
নভশ্চ পৃথিবীঞ্চৈব তুমুলোহভ্যনুনাদয়ন্ ।। ১৯
সেই তুমুল শঙ্খধ্বনি ধৃতরাষ্ট্রপুত্র দুর্যোধনাদির হৃদয় বিদীর্ণ করিয়া আকাশ ও পৃথিবী প্রতিধ্বনিত করিল । ১৯
অথ ব্যবস্থিতান্ দৃষ্ট্বা ধার্তরাষ্ট্রান্ কপিধ্বজঃ ।
প্রবৃত্তে শস্ত্রসম্পাতে ধনুরুদ্যম্য পাণ্ডবঃ ।
হৃষীকেশং তদা বাক্যমিদমাহ মহীপতে ।। ২০
হে মহীপতি, তখন কপিধ্বজ (বানর চিহ্নিত পতাকাযুক্ত) রথারূঢ় অর্জুন ধৃতরাষ্ট্রের পুত্রগণকে যুদ্ধার্থে অবস্থিত দেখিয়া শস্ত্র-নিক্ষেপে উদ্যত হইয়া ধনু উত্তোলনপূর্বক শ্রীকৃষ্ণকে এই কথা বলিলেন । ২০
অর্জুন উবাচ –
সেনয়োরুভয়োর্মধ্যে রথং স্থাপয় মেহচ্যুত ।। ২১
যাবদেতান্নিরীক্ষেহহং যোদ্ধু কামানবস্থিতান্ ।
কৈর্ময়া সহ যোদ্ধব্যমস্মিন্ রণসমুদ্যমে ।। ২২
যোৎস্যমানানবেক্ষেহহং য এতেহত্র সমাগতাঃ ।
ধার্তরাষ্ট্রস্য দুর্বুদ্ধের্যুদ্ধে প্রিয়চিকীর্ষবঃ ।। ২৩
অর্জুন বলিলেন
“যাবৎ যুদ্ধার্থ অবস্থিত ইহাদিগকে আমি নিরীক্ষণ করি ও এই মহারণে আমাকে কাহাদের সহিত যূদ্ধ করিতে হইবে তাহা নির্ণয় করি এবং দুর্বুদ্ধি দুর্যোধনের হিতকামী যে-সকল বীরপুরুষ যুদ্ধ করিবার জন্য এখানে উপস্থিত হইয়াছেন তাঁহাদিগকে পর্যবেক্ষণ করি, তাবৎ অচ্যুত (হে শ্রীকৃষ্ণ), উভয়পক্ষীয় সেনাদলের মধ্যে আমার রথ স্থাপন করুন ।” ২১-২৩
 সঞ্জয় উবাচ –
এবমুক্তো হৃষীকেশো গুড়াকেশেন ভারত ।
সেনয়োরুভয়োর্মধ্যে স্থাপয়িত্বা রথোত্তমম্ ।। ২৪
ভীষ্মদ্রোণপ্রমুখতঃ সর্বেষাঞ্চ মহীক্ষিতাম্ ।
উবাচ পার্থ পশ্যৈতান্ সমবেতান্ কুরূনিতি ।। ২৫
সঞ্জয় বলিলেন
ভারত (রাজা দুষ্মন্তের পুত্র ভরতের বংশধর, হে ধৃতরাষ্ট্র), গুড়াকেশ (জিতনিদ্র) অর্জুন শ্রীকৃষ্ণকে এইরূপ বলিলে শ্রীকৃষ্ণ উভয় সেনার মধ্যে এবং ভীষ্ম, দ্রোণ ও অন্যান্য মহীপতিগণের সম্মুখে উত্তম রথ স্থাপন করিয়া বলিলেন –শ্রীকৃষ্ণ বলিলেন
“হে পার্থ, যুদ্ধার্থ সমবেত কৌরবগণকে অবলোকন কর ।” ২৪-২৫
তত্রাপশ্যৎ স্থিতান্ পার্থঃ পিতৃনথ পিতামহান্ ।
আচার্যান্ মাতুলান্ ভ্রাতৃন্ পুত্রান্ পৌত্রান্ সখীংস্তথা ।
শ্বশুরান্ সুহৃদশ্চৈব সেনয়োরুভয়োরপি ।। ২৬
সেখানে পার্থ উভয় সেনাদলের মধ্যে ভূরিশ্রবাদি পিতৃব্যগণ, ভীষ্মাদি পিতামহগণ, দ্রোণাদি আচার্যগণ, শল্যাদি মাতুলগণ, ভীমদুর্যোধনাদি ভ্রাতৃগণ, লক্ষণাদি পুত্রগণ, পৌত্রগণ, অশ্বত্থামাদি বন্ধুগণ, দ্রুপদাদি শ্বশুরগণ এবং কৃতবর্মাদি সুহৃদগণকে অবস্থিত দেখিলেন । ২৬
 তান্ সমীক্ষ্য স কৌন্তেয়ঃ সর্বান্ বন্ধূনবস্থিতান্ ।
কৃপয়া পরয়াবিষ্টো বিষীদন্নিদমব্রবীৎ ।। ২৭
অর্জুন সেই বন্ধুগণকে যুদ্ধক্ষেত্রে অবস্থিত দেখিয়া অতিশয় করুণাবিষ্ট হইয়া দুঃখ করিতে করিতে এই বাক্য বলিলেন । ২৭
অর্জুন উবাচ –
দৃষ্ট্বেমান্ স্বজনান্ কৃষ্ণ যুযুৎসূ্ন্ সমবস্থিতান্ (সমুপস্থিতম্ ?) ।
সীদন্তি মম গাত্রাণি মুখঞ্চ পরিশুষ্যতি ।। ২৮
বেপথুশ্চ শরীরে মে রোমহর্ষশ্চ জায়তে ।
গাণ্ডীবং স্রংসতে হস্তাৎ ত্বক্ চৈব পরিদহ্যতে ।। ২৯
অর্জুন বলিলেন
“হে কৃষ্ণ, আত্মীয়বর্গকে যুদ্ধার্থ উপস্থিত দেখিয়া আমার অঙ্গপ্রত্যঙ্গাদি অবসন্ন ও মুখ শুষ্ক হইতেছে। আমার শরীর কম্পিত ও রোমাঞ্চিত হইতেছে। আমার হস্ত হইতে গাণ্ডীব-ধনু খসিয়া পড়িতেছে এবং চর্ম যেন দগ্ধ হইতেছে । ২৮-২৯
 ন চ শক্নোম্যবস্থাতুং ভ্রমতীব চ মে মনঃ ।
নিমিত্তানি চ পশ্যামি বিপরীতানি কেশব ।। ৩০
হে কেশব, আমি আর স্থির থাকিতে পারিতেছি না; আমার মন যেন ঘূর্ণিত হইতেছে এবং আমি অমঙ্গলসূচক লক্ষণসমূহ দেখিতেছি । ৩০
 ন চ শ্রেয়োহনুপশ্যামি হত্বা স্বজনমাহবে ।
ন কাঙ্ক্ষে বিজয়ং কৃষ্ণ ন চ রাজ্যং সুখানি চ ।। ৩১
হে কৃষ্ণ, যুদ্ধে আত্মীয়গণকে হত্যা করিলে মঙ্গল হইবে, ইহা অনুভব করিতেছি না । আমি যুদ্ধে জয়লাভ চাহি না, রাজ্য এবং সুখভোগও কামনা করিনা । ৩১
 কিং নো রাজ্যেন গোবিন্দ কিং ভোগৈর্জীবিতেন বা ।
যেষামর্থে কাঙ্ক্ষিতং নো রাজ্যং ভোগাঃ সুখানি চ ।। ৩২
ত ইমেহবস্থিতা যুদ্ধে প্রাণাংস্ত্যক্ত্বা ধনানি চ ।
আচার্যাঃ পিতরঃ পুত্রাস্তথৈব চ পিতামহাঃ ।। ৩৩
হে গোবিন্দ, আমাদের রাজ্যে কি প্রয়োজন, আর সুখভোগে বা জীবন-ধারণেই বা কি প্রয়োজন ? কারণ, যাঁহাদের নিমিত্ত রাজ্য, ভোগ ও সুখাদি আমাদের অভিলষিত, সেই আচার্যগণ, পিতৃব্যগণ, পুত্রগণ, পিতামহগণ, মাতুলগণ, শ্বশুরগণ, পৌত্রগণ, শ্যালকগণ ও স্বজনগণই প্রাণ ও ধনাদির আশা পরিত্যাগ করিয়া যুদ্ধে উপস্থিত হইয়াছেন । ৩২-৩৩
 মাতুলাঃ শ্বশুরাঃ পৌত্রাঃ শ্যালাঃ সন্বন্ধিনস্তথা ।
এতান্ন হন্তুমিচ্ছামি ঘ্নতোহপি মধুসূদন ।। ৩৪
হে মধুসূদন, ইহারা আমাদিগকে বধ করিলেও ত্রৈলোক্য-রাজ্যের জন্যও ইহাদিগকে বধ করিতে ইচ্ছা করি না, পৃথিবীমাত্র রাজ্যের জন্য কি কথা ? ৩৪
 অপি ত্রৈলোক্যরাজ্যস্য হেতোঃ কিং নু মহীকৃতে ।
নিহত্য ধার্তরাষ্ট্রান্ নঃ কা প্রীতিঃ স্যাজ্জনার্দন ।। ৩৫
হে জনার্দন, দুর্যোধনাদি ধৃতরাষ্ট্রের পুত্রগণকে বধ করিলে আমাদের কি সুখ হইবে ? এই সকল আততায়ীকে হত্যা করিলে আমাদিগকে পাপ আশ্রয় করিবে । ৩৫
পাপমেবাশ্রয়েদস্মান্ হত্বৈতানাততায়িনঃ ।
তস্মান্নার্হা বয়ং হন্তুং ধার্তরাষ্ট্রান্ সবান্ধবান্ ।
স্বজনং হি কথং হত্বা সুখিনঃ স্যাম মাধব ।। ৩৬
অতএব দুর্যোধনাদি ও তাহাদের বান্ধবগণকে আমাদের হত্যা করা উচিত নয় । হে মাধব, স্বজনগণকে হত্যা করিয়া আমরা কিরূপে সুখী হইব ? ৩৬
যদ্যপ্যেতে ন পশ্যন্তি লোভোপহতচেতসঃ ।
কুলক্ষয়কৃতং দোষং মিত্রদ্রোহে চ পাতকম্ ।। ৩৭
কথং ন জ্ঞেয়মস্মাভিঃ পাপাদস্মান্নিবর্তিতুম্ ।
কুলক্ষয়কৃতং দোষং প্রপশ্যদ্ভির্জনার্দন ।। ৩৮
যদিও ইহারা রাজ্যলোভে অভিভূত হইয়া কুলক্ষয়জনিত দোষ ও মিত্রদ্রোহনিমিত্ত পাপ দেখিতেছে না, (কিন্তু) হে জনার্দন, বংশনাশজনিত দোষ উপলব্ধি করিয়াও আমরা এই পাপ হইতে নিবৃত্ত হইবার উপায় জানিব না কেন ? ৩৭-৩৮
কুলক্ষয়ে প্রণশ্যন্তি কুলধর্মাঃ সনাতনাঃ ।
ধর্মে নষ্টে কুলং কৃৎস্নমধর্মোঽভিভবত্যুত ।। ৩৯
কুলনাশে চিরাচরিত কুলধর্ম অনুষ্ঠাতার অভাবে নষ্ট হয় এবং কুলধর্মলোপে সমগ্র কুল অনাচাররূপ অধর্মে অভিভূত হয় । ৩৯
 অধর্মাভিভবাৎ কৃষ্ণ প্রদুষ্যন্তি কুলস্ত্রিয়ঃ ।
স্ত্রীষু দুষ্টাসু বার্ষ্ণেয় জায়তে বর্ণসঙ্করঃ ।। ৪০
হে কৃষ্ণ, অধর্মের দ্বারা অভিভূত হইলে কুললক্ষ্মীগণ দুষ্টা হয় । হে বার্ষ্ণেয়, কুলস্ত্রীগণ দুষ্টা হইলে বর্ণসঙ্কর উৎপন্ন হয় । ৪০
সঙ্করো নরকায়ৈব কুলঘ্নানাং কুলস্য চ ।
পতন্তি পিতরো হ্যেষাং লুপ্তপিণ্ডোদকক্রিয়াঃ ।। ৪১
কুলের সংমিশ্রণ হইলে কুলনাশকগণ নরকগামী হয় এবং শ্রাদ্ধতর্পণাদি ক্রিয়া লুপ্ত হওয়ায় তাঁহাদের পিতৃপুরুষগণও নরকে পতিত হন । ৪১
দোষৈরেতৈঃ কুলঘ্নানাং বর্ণসঙ্করকারকৈঃ ।
উৎসাদ্যন্তে জাতিধর্মাঃ কুলধর্মাশ্চ শাশ্বতাঃ ।। ৪২
এই সকল বর্ণসঙ্করকারক দোষের দ্বারা কুলনাশকগণের সনাতন বর্ণধর্ম, কুলধর্ম ও আশ্রমধর্ম উৎসন্ন হয় । ৪২
 উৎসন্নকুলধর্মাণাং মনুষ্যাণাং জনার্দন ।
নরকে নিয়তং বাসো ভবতীত্যনুশুশ্রুম ।। ৪৩
হে জনার্দন, যাহাদের কুলধর্ম উৎসন্ন হইয়াছে, তাহাদের নিরন্তর নরকে বাস করিতে হয়, ইহা আমরা শাস্ত্র ও আচার্যের মুখে অবগত আছি । ৪৩
অহো বত মহৎ পাপং কর্তুং ব্যবসিতা বয়ম্ ।
যদ্রাজ্যসুখলোভেন হন্তুং স্বজনমুদ্যতাঃ ।। ৪৪
হায় ! আমরা কি মহাপাপ করিতে প্রবৃত্ত হইয়াছি, যেহেতু আমরা রাজ্যসুখের লোভে স্বজনগণকে হত্যা করিতে উদ্যত । ৪৪
যদি মামপ্রতিকারমশস্ত্রং শস্ত্রপাণয়ঃ ।
ধার্তরাষ্ট্রা রণে হন্যুস্তন্মে ক্ষেমতরং ভবেৎ ।। ৪৫
প্রতীকাররহিত ও নিরস্ত্র আমাকে যদি শস্ত্রধারী ধৃতরাষ্ট্রপুত্রগণ যুদ্ধে বধ করেন, তাহাতে আমার অধিকতর কল্যাণ হইবে। আমার পক্ষে জীবনধারণ অপেক্ষা মরণই প্রিয়তর । ৪৫
 সঞ্জয় উবাচ –
এবমুক্ত্বার্জুনঃ সংখ্যে রথোপস্থ উপাবিশৎ ।
বিসৃজ্য সশরং চাপং শোকসংবিগ্নমানসঃ ।। ৪৬
সঞ্জয় বলিলেন
অর্জুন এইরূপ বলিয়া ধনুর্বাণ ত্যাগপূর্বক শোকাকুল চিত্তে রথোপরি উপবেশন করিলেন । ৪৬
ভগবান্‌ ব্যাসকৃত লক্ষশ্লোকাত্মক শ্রীমহাভারতের ভীষ্মপর্বের অন্তর্গত শ্রীমদ্ভগবদ্গীতারূপ উপনিষদে ব্রহ্মবিদ্যাবিষয়ক যোগশাস্ত্রে শ্রীকৃষ্ণার্জুনসংবাদে অর্জুনবিষাদযোগ নামক প্রথম অধ্যায় সমাপ্ত ।

১) কুরুক্ষেত্র = কুরু নামক এক কৌরব রাজার নামানুসারে এই পুণ্যভূমির নাম কুরুক্ষেত্র
৩) ব্যূহ = যুদ্ধক্ষেত্রে সৈন্যস্থাপন, সেনাবিন্যাস
৬) মহারথ = যে বীর দশ হাজার ধনুর্ধরের সহিত একাকি যুদ্ধ করিতে সমর্থ ও শস্ত্রবিদ্যায় প্রবীণ
৮) দ্রোণাচার্য = পাণ্ডবদিগের অস্ত্রাচার্য ও মহর্ষি ভরদ্বাজের পুত্র । ইনি একটি দ্রোণ বা কলসের মধ্যে জন্মগ্রহণ করিয়াছিলেন বলে এই নাম প্রাপ্ত হন ।
১৫) ধনঞ্জয় = যিনি দিগ্বিজয় করিয়া কুবেরাদির ধন জয় (লাভ) করিয়াছিলেন
হৃষীকেশ = হৃষীক (ইন্দ্রিয়) + ঈশ (কর্তা) = ইন্দ্রিয়গণের পরিচালক পরমাত্মা
পাঞ্চজন্য = শ্রীকৃষ্ণ কর্তৃক নিহত পঞ্চজনের অস্থিতে এই শঙ্খ নির্মিত
২৪) গুড়াকেশ = গুড়াকা (নিদ্রা) + ঈশ (জেতা), অর্থাৎ যিনি নিদ্রা জয় করিয়াছেন
২৮) কৃষ্ণ = যিনি ভক্তকে আকর্ষণ করেন বা যিনি ভক্তের দুঃখ কর্ষণ (বিনাশ) করেন
৩০) অমঙ্গলসূচক লক্ষণসমূহ = বামনেত্রস্ফুরণাদি (আনন্দগিরি); লোকক্ষয়কারী ভূমিকম্পাদি (নীলকণ্ঠ)
৩৫) আততায়ী = যে ঘরে আগুন দেয়, যে অন্যকে বিষ দেয়, বধার্থ অস্ত্রধারী, ধনাপহারী, ভূমি-অপহারী ও দারাপহারী – এই ছয়জন । অর্থশাস্ত্রানুসারে আততায়ীবধ বিহিত হইলেও ধর্মশাস্ত্রানুসারে আচার্যাদি আততায়ীকে বধ করা নিষিদ্ধ – অর্জুন এইরূপ ভাবিতেছেন ।

*Hard Copy Source:
“Srimadbhagabadgeeta” translated by Swami Jagadeeshwarananda, edited by Swami Jagadananda. 27th Reprint – January, 1997 (1st Edition – 1941), © President, Sriramkrishna Math, Belur. Published by Swami Satyabrotananda, Udbodhan Office, 1 Udbodhan Lane, Bagbazar, Kolkata-700003. Printed by Rama Art Press, 6/30 Dum Dum Road, Kolkata-700030.

Sanskrit Source
English Translation


Disclaimer: This site is not officially related to Ramakrishna Mission & Math. এটি এক অর্বাচীন ভক্তের প্রয়াস মাত্র ।
[Digitised by scanning (if required) and then by typing mostly in Notepad using Unicode Bengali “Siyam Rupali” font and Avro Phonetic Keyboard for transliteration. Uploaded by rk]
Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s