বেদ ও প্রাচীন ভারতের আধ্যাত্মিক ঐতিহ্য (নিয়মিত পর্ব-১১)


ওঁ তৎ সৎ

%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6-%e0%a6%93-%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%a4%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%a7%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%bf%e0%a6%95-%e0%a6%90
রামায়ণের একটি ঘটনার দ্বারা বেদমন্ত্রের শক্তি আর তার কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া যায়। শ্রীরামচন্দ্র চৌদ্দ বছরের জন্য অযোধ্যা ছেড়ে বনবাসের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে গেছেন। ভরত শ্রীরামচন্দ্রকে অযোধ্যায় ফিরিয়ে আনার জন্য খুঁজতে গেছেন। যেতে যেতে সন্ধ্যে হয়ে গেছে, ভরত সৈন্য সামন্ত নিয়ে ভরদ্বাজ মুনির আশ্রমে এক রাতের জন্য আশ্রয় নিয়েছেন। ভরদ্বাজ মুনি চিন্তায় পড়ে গেলেন, রাজা এসেছেন, সঙ্গে এত লোকজন, এদেরকে তো আর গাছের তথায় রাখা যায় না, আর সামান্য ফলমূল খাইয়ে অতিথি সৎকার করাও উপযুক্ত হবে না। ভরদ্বাজ মুনি তখন বেদ মন্ত্রের আবাহন করতে শুরু করলেন। বেদের ঋচাগুলি আবাহন করতে লাগলেন তখন দেখা গেলে স্বর্গ থেকে বিভিন্ন রকমের খাদ্যসামগ্রী, পেয় পদার্থ আশ্রয়ে পড়তে লাগল। স্বর্গ থেকে অপ্সরারাও নেমে এসেছেন সবাইকে পরিচর্যা করবার জন্য। সৈন্যরা এই ধরণের সুস্বাদু খাবার, পানীয় কোন দিন চোখেই দেখেনি, তারপরে অপ্সরাদের সাথে নাচগান করার সুযোগ পেয়ে সৈন্যরা বলছে ‘রামচন্দ্রই রাজা হোক কি ভরতই রাজা হোক তাতে আমাদের আর কি যায় আসে, আমরা এখানেই সুখে আছি, এই জায়গা ছেড়ে আমরা আর কোথাও যাবো না, এখানেই আমাদের জীবন সার্থক’। সকালের আলো ফুটতেই দেখে সব ভোঁ ভোঁ, কিছুই নেই। বেদ মন্ত্র দিয়ে যে কোন জিনিষকেই নিয়ে আসা যায়, এই ধারণাটা আমাদের প্রাচীন কাল থেকেই চলে আসছে। হ্যারি পটারের মত ম্যাজিক কিছু নয়, সত্যি সত্যিই এই জিনিষই হবে।
আমাদের মূল কথা হচ্ছে ধর্ম, অর্থ, কাম ও মোক্ষ। ধর্মপতের অনুপযুক্ত লোকেদের জন্য অর্থ আর কামের সাধনার ব্যাবস্থা বেদ করে দিয়েছে।
কলিতে মানুষের অন্নগত প্রাণ, লোকেদের সময় খুব কম, এই অল্প সময়ের মধ্যে যদি সাধন ভজন করতে যায় তার হবে না। আবার যেসব শুদ্ধসত্ত্ব ছোকরারা আছে তাদের যাতে সময় নষ্ট না হয় তাই সরাসরি তাদের কামিনী-কাঞ্চনের ত্যাগের কথা দিয়ে বলছেন ঈশ্বর দর্শনই জীবনের উদ্দেশ্য। কিন্তু প্রত্যেক হিন্দুকেই ধর্ম, অর্থ, কাম ও মোক্ষ এই চারটির মধ্যে যে কোন একটাকে জীবনের উদ্দেশ্য করে সেইভাবে জীবন যাপন করতে হবে। অনেক টাকা যদি কেউ রোজগার করতে চায় তাতে কোন দোষ নেই। এইটাই হচ্ছে সকলের জন্য বেদের উপদেশ।
ক্রমশঃ

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s