মাণ্ডুক্য উপনিষদ » ১ম—আগম প্রকরণ


১ম—আগম প্রকরণ

ওঁকারের সর্ব্বাত্মকতা প্রতিপাদন

ॐ ইত্যেতদক্ষরমিদঁ সর্বং তস্যোপব্যাখ্যানং
ভূতং ভবদ্ ভবিষ্যদিতি সর্বমোঙ্কার এব
যচ্চান্যত্ ত্রিকালাতীতং তদপ্যোঙ্কার এব  .. ১..

ওঁকারই যে, পর ব্রহ্ম ও অপর ব্রহ্মের প্রতীক বা অবলম্বন, ইহা জ্ঞাপনার্থ প্রথমতঃ ওঁকারের সর্ব্বাত্মকতা নির্দেশ করিতেছেন। এই দৃশ্যমান সমস্ত জগৎই ‘ওঁ’ এই অক্ষরাত্মক; তাহার সুস্পষ্ট বিবরণ এই যে, ভূত, ভবিষ্যত ও বর্ত্তমান, এই সমস্ত বস্তই ওঁকারাত্মক, এবং কালত্রয়াতীত আরও যাহা কিছু আছে, তাহাও এই ওঁকারস্বরূপই বটে।।১।।

ব্রহ্মের সর্ব্বাত্মকতা, আত্মস্বরূপতা এবং পাদ-চতুষ্টয় নিরূপণ

সর্বং হ্যেতদ্ ব্রহ্মাযমাত্মা ব্রহ্ম সোঽযমাত্মা চতুষ্পাত্ .. ২..

এই পরিদৃশ্যমান সমস্তই ব্রহ্মস্বরূপ, এবং এই আত্মাও (জীবও) ব্রহ্মস্বরূপ; সেই এই আত্মা চতুষ্পাৎ অর্থাৎ চারিটি অংশযুক্ত।।২।।

ব্রহ্মের বৈশ্বানর-সংজ্ঞক প্রথম পাদ নিরূপন

জাগরিতস্থানো বহিষ্প্রজ্ঞঃ সপ্তাঙ্গ একোনবিংশতিমুখঃ স্থূল
ভুগ্বৈশ্বানরঃ প্রথমঃ পাদঃ .. ৩..

জাগ্রদবস্থা যাহার স্থান বা ভোগক্ষেত্র, বাহ্যবিষয়ে যাহার প্রজ্ঞা বা অনুভূতি, সাতটি যাহার অঙ্গ, ঊনবিংশতিটি যাহার মুখ বা উপলিব্ধিদ্বার, স্থূলবিষয়ভোজী সেই বৈশ্বানরই আত্মার প্রথমপাদ সাধকের নিকট প্রথমেই প্রতীতির বিষয় হয়।।৩।।

ব্রহ্মের তৈজস-সংজ্ঞক দ্বিতীয় পাদ কথন

স্বপ্নস্থানোঽন্তঃ প্রজ্ঞাঃ সপ্তাঙ্গ একোনবিংশতিমুখঃ
প্রবিবিক্তভুক্তৈজসো দ্বিতীযঃ পাদঃ .. ৪..

আত্মার দ্বিতীয় পাদ কথিত হইতেছে—স্বপ্নদর্শন ইহার স্থান, অন্তরে (অবাহ্য বিষয়ে) ইহার জ্ঞান, সুতেজঃপ্রভৃতি পূর্বোক্ত সাতটি ইহার অঙ্গ, এবং পূর্ব্বোক্ত জ্ঞানেন্দ্রিয়াদি একশটি ইহার মুখ, কেবল সংস্কারোপস্থাপিত বিষয়ভোগী এই তৈজস (তেজোময় অন্তঃকরণস্বামী [আত্মার] দ্বিতীয় পাদ।।৪।।

ব্রহ্মের প্রাজ্ঞ-সংজ্ঞক তৃতীয় পাদ নিরূপণ এবং তাহারই সর্ব্বান্তর্য্যামিত্ব ও সর্ব্বকারণত্ব কথন

যত্র সুপ্তো ন কঞ্চন কামং কামযতে ন কঞ্চন স্বপ্নং
পশ্যতি তত্
সুষুপ্তম্ . সুষুপ্তস্থান একীভূতঃ প্রজ্ঞানঘন
এবানন্দমযো
হ্যানন্দভুক্ চেতো মুখঃ প্রাজ্ঞস্তৃতীযঃ পাদঃ .. ৫..

এষ সর্বেশ্বরঃ এষ সর্বজ্ঞ এষোঽন্তর্যাম্যেষ যোনিঃ সর্বস্য
প্রভবাপ্যযৌ হি ভূতানাম্ .. ৬..

সুষুপ্ত পুরুষ যে স্থানে বা অবস্থায় কোনরূপ ভোগ্য বিষয় প্রার্থণা করে না; কোনরূপ স্বপ্ন দর্শন করে না; তাহাই ‘সুষুপ্তস্থান’। এই সুষুপ্ত যাহার স্থান, [বাহ্য ও আন্তর সর্ব্বপ্রকার বিষয় বিজ্ঞান না থাকায়] একীভাবপ্রাপ্ত, কেনলই প্রকৃষ্ট জ্ঞানমূর্তি, প্রচুর আনন্দপূর্ণ ও আত্মানন্দভোজী এবং স্বীয় বোধশক্তি যাহার মুখস্বরূপ, সেই প্রাজ্ঞ আত্মা ইহার তৃতীয় পাদ।।৫।।

ইনি (প্রাজ্ঞ) সকলের ঈশ্বর, ইনি সর্ব্বজ্ঞ, ইনি অন্তর্যামী (যিনি অভ্যন্তরে থাকিয়া সকলকে নিয়মিত করেন), এবং যেহেতু ইনিই সমস্ত ভূতের উৎপত্তি ও বিলয় স্থান, অতএব ইনিই সর্ব্ব জগতের কারণ।।৬।।

উক্ত পাদত্রয়াতীত তুরীয় ব্রহ্ম স্বরূপ কথন

নান্তঃপ্রজ্ঞং ন বহিষ্প্রজ্ঞং নোভযতঃপ্রজ্ঞং ন প্রজ্ঞানঘনং
ন প্রজ্ঞং নাপ্রজ্ঞম্ | অদৃষ্টমব্যবহার্যমগ্রাহ্যমলক্ষণং
অচিন্ত্যমব্যপদেশ্যমেকাত্মপ্রত্যযসারং প্রপঞ্চোপশমং
শান্তং শিবমদ্বৈতং চতুর্থং মন্যন্তে স আত্মা স বিজ্ঞেযঃ ..৭..

বিবেকিগণ চতুর্থকে (তুরীয়কে) মনে করেন যে, তিনি অন্তঃপ্রজ্ঞ তৈজস নহেন; বহিঃপ্রজ্ঞ বিশ্ব নহেন; জাগ্রৎও স্বপ্নের মধ্যবর্ত্তী জ্ঞানসম্পন্ন নহেন; প্রজ্ঞানঘন প্রাজ্ঞ নহেন; জ্ঞাতা নহেন; অচেতন নহেন; পরন্তু চক্ষুরাদি ইন্দ্রিয়ের অবিষয়, ‘ইহা অমুক’ ইত্যাকার ব্যবহারের অযোগ্য, কর্ম্মেন্দ্রিয়ের অগ্রাহ্য, [অনুমানযোগ্য] কোনরূপ চিহ্নরহিত, মানস-চিন্তার অবিষয়, শব্দ দ্বারা নির্দ্দেশের অযোগ্য; কেবল ‘আত্মা’ ইত্যাকার প্রভীতিগম্য, জাগ্রদাদি প্রপঞ্চের নিবৃত্তিস্থান, শান্ত (নির্বিকার); মঙ্গলময়, অদ্বৈত। তিনিই আত্মা; এবং তিনিই একমাত্র জ্ঞাতব্য পদার্থ।।৭।।

বৈশ্বানরাদি পাদত্রয়ের জাগ্রদাদি অবস্থাত্রয়ে যথাক্রমে অকারাদি মাত্রারূপত্ব কথন, এবং তদ্‌বিজ্ঞানের ফল কীর্ত্তন 

সোঽযমাত্মাধ্যক্ষরমোঙ্করোঽধিমাত্রং পাদা মাত্রা মাত্রাশ্চ পাদা
অকার উকারো মকার ইতি .. ৮..

সেই এই আত্মা অক্ষরাধিকারে ওঙ্কারস্বরূপ; আর মাত্রাধিকারে পাদস্বরূপ। পাদও মাত্রাস্বরূপ, এবং মাত্রাও পাদস্বরূপ; অকার, উকার ও মকার, ইহারা ‘মাত্রা’ পদবাচ্য।।৮।।

জাগরিতস্থানো বৈশ্বানরোঽকারঃ প্রথমা
মাত্রাঽঽপ্তেরাদিমত্ত্বাদ্
বাঽঽপ্নোতি হ বৈ সর্বান্ কামানাদিশ্চ ভবতি য এবং বেদ.. ৯..

জাগরিতস্থান বৈশ্বানরই প্রথম মাত্রা আকারস্বরূপ; কেননা, উভয়ই ব্যাপক ও আদ্য। যে উপাসক এইরূপ জানে, সে সমস্ত কাম্য বিষয় লাভ করে এবং সকলের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে।।৯।।

স্বপ্নস্থানস্তৈজস উকারো দ্বিতীযা মাত্রোত্কর্ষাত্
উভযত্বাদ্বোত্কর্ষতি হ বৈ জ্ঞানসন্ততিং সমানশ্চ ভবতি
নাস্যাব্রহ্মবিত্কুলে ভবতি য এবং বেদ .. ১০..

পূর্ব্বোক্ত স্বপ্নস্থানগত তৈজস আত্মাই [ওঙ্কারের] দ্বিতীয় মাত্রা উকারস্বরূপ; কেননা [উভয়েরই] উৎকর্ষ ও মধ্যবর্ত্তিত্ব ধর্ম্ম তুল্য। যিনি এতদুভয়ের একত্ব জানেন; তিনি স্বীয় জ্ঞানের উৎকর্ষ সাধন করেন, সাধুজনের সমান হন, এবং ইঁহার বংশে ব্রহ্মজ্ঞানহীন কেহ জন্মে নাম।।১০।।

সুষুপ্তস্থানঃ প্রাজ্ঞো মকারস্তৃতীযা মাত্রা মিতেরপীতের্বা
মিনোতি হ বা ইদং সর্বমপীতিশ্চ ভবতি য এবং বেদ .. ১১..

সুষুপ্তি স্থানগত প্রাজ্ঞ আত্মাও ওঙ্কারের তৃতীয় পাদ—মকারস্বরূপ; কেননা [প্রাজ্ঞ ও মকার, উভয়ই বিশ্ব ও তৈজসের এবং অকার ও উকারের] পরিমাপক বা নির্গমস্থান, এবং অপীতি বা বিলয়স্থান। যিনি এইরূপ জানেন, তিনি এই সমস্ত জগৎ অবগত হন এবং সকলের আশ্রয়ীভূত হন।।১১।।

উক্ত মাত্রাসম্বন্ধরহিত অদ্বৈত তুরীয়ব্রহ্মস্বরূপ নিরূপণ 

অমাত্রশ্চতুর্থোঽব্যবহার্যঃ প্রপঞ্চোপশমঃ শিবোঽদ্বৈত
এবমোঙ্কার আত্মৈব সংবিশত্যাত্মনাঽঽত্মানং য এবং বেদ .. ১২..

পূর্ব্বোক্ত মাত্রাশূন্য, অব্যবহার্য্য, জগতীপ্রপঞ্চের নিবৃত্তিস্থান, মঙ্গলময় এবং জ্ঞানিকর্ত্তৃক পূর্ব্বোক্ত প্রকারে প্রযুক্ত চতুর্থ ওঙ্কার অদ্বৈত আত্মস্বরূপই বটে। যিনি এইরূপে জানেন, তিনি নিজেও আত্মাতে (পারমার্থিক আত্মভাবে) প্রবেশ করেন।।১২।।
.. ইতি মাণ্ডুক্যোপনিষত্ সমাপ্তা ..

Advertisements